ঢাকা, রবিবার, জুলাই ১৪, ২০২৪ | ৩০ আষাঢ় ১৪৩১
Logo
logo

‘গুরুত্ব পাবে প্রতিবেশীরা’, সাত রাষ্ট্রপ্রধানকে বার্তা নরেন্দ্র মোদির 


এনবিএস ওয়েবডেস্ক   প্রকাশিত:  ১০ জুন, ২০২৪, ০৩:০৬ পিএম

‘গুরুত্ব পাবে প্রতিবেশীরা’, সাত রাষ্ট্রপ্রধানকে বার্তা নরেন্দ্র মোদির 

‘গুরুত্ব পাবে প্রতিবেশীরা’, সাত রাষ্ট্রপ্রধানকে বার্তা নরেন্দ্র মোদির 

রোববার রাষ্ট্রপতি ভবনে আমন্ত্রিত রাষ্ট্রপ্রধানদের সঙ্গে রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মু, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং উপরাষ্ট্রপতি জগদীপ ধনখড়। ছবি: পিটিআই।
ইকবাল খানপ্রতিবেশীরাই অগ্রাধিকার পাবে’। শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত আমন্ত্রিত রাষ্ট্রপ্রধানদের এই বার্তা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পরে রাষ্ট্রপতি ভবনে সাত রাষ্ট্রপ্রধানের সঙ্গে দেখা করেন তৃতীয় বারের জন্য প্রধানমন্ত্রী হিসাবে শপথ নেওয়া মোদি। 

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়, আমন্ত্রিত রাষ্ট্রপ্রধানদের সঙ্গে দেখা করে নরেন্দ্র মোদি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় শান্তি এবং সমৃদ্ধির পক্ষে সওয়াল করেন। তিনি জানান, ভারত দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় শান্তি এবং উন্নতির লক্ষ্যে কাজ করে যাবে।

রাষ্ট্রপতি ভবনে আয়োজিত নৈশভোজে যোগ দেন বিদেশি রাষ্ট্রপ্রধানেরা। 
সেই নৈশভোজে মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট মুহম্মদ মুইজ্জুর সঙ্গে একান্তে কথা বলতে দেখা যায় মোদীকে। 

প্রসঙ্গত, গত বছর এই মুইজ্জু মলদ্বীপের ক্ষমতায় আসার পরেই ভারত মহাসাগরের দেশটির সঙ্গে ভারতের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে টানাপড়েন শুরু হয়। কিন্তু সেই মুইজ্জুকেই শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো এবং তাঁর সঙ্গে মোদির একান্তে কথা বলাকে ‘তাৎপর্যপূর্ণ’ বলেই মনে করা হচ্ছে। 

পর্যবেক্ষকদের একাংশ মনে করছেন, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় চীনের প্রভাব খর্ব করতে শপথ নেওয়ার পরের দিন থেকেই প্রতিবেশি দেশগুলিকে কাছে টানার চেষ্টা শুরু করে দিলেন মোদি।

রাষ্ট্রপতি ভবনের প্রাঙ্গণে নরেন্দ্র মোদি এবং তাঁর মন্ত্রিসভার সদস্যদের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমসিঙ্ঘে, মলদ্বীপের প্রেসিডেন্ট মহম্মদ মুইজ্জু, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী শেরিং তোবগে, নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্পকমল দহাল ওরফে প্রচণ্ড, মরিশাসের প্রধানমন্ত্রী প্রবীন্দ জুগনাথ প্রমুখ। 
এই রাষ্ট্রপ্রধানদের মধ্যে কেবল বিক্রমসিঙ্ঘে পূর্বনির্ধারিত কাজের জন্য সোমবার দুপুরেই ভারত ছাড়বেন। 

বাকি রাষ্ট্রপ্রধানের দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করবেন। 
তার পর তাঁদের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর সঙ্গে দেখা করার কথা। যদিও এখনও মন্ত্রীদের দায়িত্ব বণ্টন করা হয়নি। বিকেল ৫টায় মন্ত্রিসভার বৈঠক। বৈঠকের পরেই দেশের পরবর্তী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নাম জানা যেতে পারে। বিজেপি সূত্রে খবর, এ বারও পররাষ্ট্রমন্ত্রী হতে চলেছেন এস জয়শঙ্কর।  সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া বাংলা

এনবিএস/ওডে/সি