ঢাকা, বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০২৪ | ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
Logo
logo

ফ্রান্স ইউক্রেনে বিশেষ বাহিনী পাঠানোর কথা ভাবছে- লা মন্ডে


এনবিএস ওয়েবডেস্ক   প্রকাশিত:  ০২ মার্চ, ২০২৪, ০৫:০৩ পিএম

ফ্রান্স ইউক্রেনে বিশেষ বাহিনী পাঠানোর কথা ভাবছে- লা মন্ডে

ফ্রান্স ইউক্রেনে বিশেষ বাহিনী পাঠানোর কথা ভাবছে- লা মন্ডে

প্যারিস মস্কোর জন্য একটি ‘কৌশলগত দ্বিধা’ তৈরি করতে ইউক্রেনের ভূখণ্ডে একটি ছোট কিন্তু বিশেষ বাহিনী পাঠানোর কথা ভাবছে, এমন দাবি করেছে ফরাসি আউটলেটটি।

ফরাসি পত্রিকাটির প্রতিবেদনে বলা হয় দেশটির সরকার কিয়েভের সশস্ত্র বাহিনীর প্রশিক্ষক হিসাবে এবং রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে ‘প্রতিরোধকারী’ হিসাবে কাজ করার জন্য সরাসরি ইউক্রেনে একটি ছোট সামরিক বাহিনী প্রেরণের কথা ভাবছে।

তবে প্রতিবেদনে বাহিনী বা সামরিক প্রশিক্ষকের সংখ্যার কথা প্রকাশ করা হয়নি। এধরনের বাহিনীর সঙ্গে কিছু ‘প্রচলিত ইউনিট’ অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে।

লা মন্ডের মতে, ফ্রান্সের বিশেষ বাহিনী প্রতিবেশী পোল্যান্ডে ইউক্রেনীয় সৈন্যদের প্রশিক্ষণ এবং কিয়েভে দেশটির অস্ত্র সরবরাহের ক্ষেত্রেও জড়িত ছিল। তারা অবশ্য সবসময় ‘ইউক্রেনীয় সীমান্তে’ থেকে কাজ করেছে।

শুক্রবারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফ্রান্স ইউক্রেনীয়দের ‘ভূমিতে’ যে প্রশিক্ষণ দিতে চায় তার মধ্যে রয়েছে বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পরিচালনা করা। কিয়েভের সারফেস-টু-এয়ার অস্ত্র স্থাপনাগুলি প্রায়শই রুশ বাহিনী দ্বারা লক্ষ্যবস্তু হয়ে ওঠে। এখন ফরাসি সেনা বা অন্য দেশের সেনার উপস্থিতি সম্ভাব্যভাবে ইউক্রেনীয় ভূখণ্ডের নির্দিষ্ট কিছু অঞ্চলকে রক্ষা করবে।

ফ্রান্স সরকার মনে করছে ইউক্রেনে তার বিশেষ বাহিনী মোতায়েন হলে দেশটিতে রুশ হামলার ক্ষমতাকে ‘সীমাবদ্ধ’ করতে পারে। বিশেষ করে, মার্কিন এফ-১৬ যুদ্ধবিমান ইউক্রেনে সরবরাহের আগে ‘প্রয়োজনীয়’ প্রমাণিত হতে পারে।

শুক্রবার, ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্টিফেন সেজর্ন অস্বীকার করেছেন যে প্যারিস ইউক্রেনে কোনও যুদ্ধ ইউনিট পাঠানোর পরিকল্পনা করছে। তবে এও বলেন তার দেশ রাশিয়ার সাথে যুদ্ধ এড়াতে ‘সবকিছু’ করবে।