ঢাকা, শনিবার, জুলাই ২০, ২০২৪ | ৪ শ্রাবণ ১৪৩১
Logo
logo

জনসংখ্যা হ্রাসে জাপানে ৯০ লাখ বাড়ি খালি


এনবিএস ওয়েবডেস্ক   প্রকাশিত:  ০৮ মে, ২০২৪, ০৭:০৫ পিএম

জনসংখ্যা হ্রাসে জাপানে ৯০ লাখ বাড়ি খালি

জনসংখ্যা হ্রাসে জাপানে ৯০ লাখ বাড়ি খালি

জাপানে মানুষের আয়ু বেড়েছে কিন্তু কমেছে জন্মহার। এ কারণে জাপানে খালি বাড়ির সংখ্যা রেকর্ড সর্বোচ্চ নয় মিলিয়নে উন্নীত হয়েছে – যা যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক সিটিতে প্রতিটি ব্যক্তির বাস করার জন্যে যথেষ্ট।

পরিত্যক্ত বাড়িগুলি জাপানে ‘আকিয়া’ নামে পরিচিত। যা সাধারণত গ্রামীণ এলাকায় পরিত্যক্ত আবাসিক বাড়িগুলিকে বোঝায়। কিন্তু টোকিও এবং কিয়োটোর মতো বড় শহরগুলিতে আরও আকিয়া দেখা যাচ্ছে এবং এটি দেশটির  সরকারের জন্য সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। 

জাপান ইতিমধ্যেই বার্ধক্যজনিত জনসংখ্যার সাথে লড়াই করছে এবং প্রতি বছর জন্ম নেওয়া শিশুদের সংখ্যায় উদ্বেগজনক পতন ঘটছে। স্কুলে ভর্তি করার মত শিশু পাওয়া না যাওয়ায় অনেক স্কুল বন্ধ করে দিতে হয়েছে। 

চিবাতে কান্দা ইউনিভার্সিটি অফ ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজের লেকচারার জেফরি হল বলেন, ‘এটি জাপানের জনসংখ্যা হ্রাসের একটি উপসর্গ। এটি আসলেই খুব বেশি বাড়ি তৈরির সমস্যা নয়। তবে পর্যাপ্ত লোক না থাকার সমস্যায় বাড়িগুলো খালি হয়ে পড়ছে।’

দেশটির অভ্যন্তরীণ বিষয়ক ও যোগাযোগ মন্ত্রলালয়ের হিসেবে জাপানের সমস্ত আবাসিক সম্পত্তির ১৪% খালি রয়েছে। 

এভাবে খালি বাড়ি বেড়ে যাওয়ায় ক্ষয়প্রাপ্ত শহরগুলিকে পুনরুজ্জীবিত করার প্রচেষ্টা, রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে সম্ভাব্য বিপদে পরিণত হওয়া, ভূমিকম্প ও সুনামি প্রবণ দেশে দুর্যোগের সময় উদ্ধারকারীদের ঝুঁকি বাড়ানোর মত বিষয়গুলোকে নিয়ে ভাবতে হচ্ছে। 

জাপানে জন্মহারে উর্বরতার হার কমে যাওয়ায়, অনেক পরিবারের উত্তরাধিকারী নেই বা উত্তরাধিকারসূত্রে প্রাপ্ত তরুণ প্রজন্ম যারা শহরে চলে গেছে এবং গ্রামীণ অঞ্চলে ফিরে আসার কোনো সুযোগ নেই, এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। 

স্থানীয় কর্তৃপক্ষ জানে না যে এসব খালি বাড়ির মালিক কারা। বিষয়টি সরকারের পক্ষে দ্রুত বয়স্ক গ্রামীণ সম্প্রদায়গুলিকে পুনরুজ্জীবিত করা কঠিন করে তুলেছে।

জাপানের ট্যাক্স নীতির অধীনে, কিছু মালিক প্রায়ই বাড়িটিকে পুনঃউন্নয়নের জন্য ভেঙে ফেলার চেয়ে এটিকে ধরে রাখা সস্তা বলে মনে করেন। এমনকি মালিকরা বিক্রি করতে চাইলেও ক্রেতা খুঁজে পেতে তাদের সমস্যা হচ্ছে। 

এসব খালি বাড়ির অনেকগুলি পাবলিক ট্রান্সপোর্ট, স্বাস্থ্যসেবা এমনকি নাগরিক সুবিধার দোকানগুলি থেকে বিচ্ছিন্ন রয়েছে। খালি বাড়িগুলিকে ভেঙ্গে ফেলা বা আড়ম্বরপূর্ণ গেস্টহাউস এবং ক্যাফেতে পরিণত করাও সহজ নয়। 

বাস্তবতা হচ্ছে বাড়িগুলির বেশিরভাগই বিদেশীদের কাছে বিক্রি করা হবে না, অথবা যে পরিমাণ প্রশাসনিক কাজ এবং এর পিছনের নিয়মগুলি এমন কঠিন যে বিদেশিদের পক্ষে তা কেনা সহজ নয়। তারা সস্তায় এই বাড়িগুলি কিনতেও পারবে না। সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া বাংলা

এনবিএস/ওডে/সি