রাশিয়াকে ইউক্রেন ছাড়তে তাগিদ যুক্তরাষ্ট্রের

চীন-রাশিয়ার বন্ধুত্বের ৭৫ বছর পালন করেছে বেইজিং। আমন্ত্রিত ছিলেন রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন। শুক্রবার তাঁর সঙ্গে বৈঠকের পরে চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বলেছেন, ইউক্রেনের যুদ্ধে তাঁরা রাজনৈতিক সমাধান চান। চীন যে রাশিয়ার পাশে রয়েছে, সে কথাও বার বার মনে করিয়ে দিয়েছেন শি। 
উক্রেনের যুদ্ধে ‘রাজনৈতিক সমাধান’ চাওয়ার পাশাপাশি শি এ-ও বলেন, ‘‘রাশিয়া-চীন মৈত্রী গোটা বিশ্বের সামগ্রিক পরিস্থিতিকে স্থিতিশীল রাখছে।’’ 

এ প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র কী ভাবছে, তা জানতে চাওয়া হলে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের উপ মুখপাত্র বেদান্ত প্যাটেল সাংবাদিকদের বলেন, ‘চীন কিন্তু এর পরে ইউরোপ ও অন্য দেশগুলোর কাছে ভাল, মজবুত, গভীর সম্পর্ক চাইতে পারে না। যে দেশ ইউরোপের সুরক্ষার পক্ষে বিপজ্জনক হয়ে উঠেছে, তাকে ইন্ধন দিচ্ছে চীন।’

প্যাটেল জানিয়েছেন, আমেরিকার অবস্থান সম্পর্কে জি৭ গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলোকে, ন্যাটো সদস্যদের এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নকে জানানো হয়েছে। তাঁর কথায়, ‘রাশিয়াকে অস্ত্রের জোগান দিয়ে চীন শুধু ইউক্রেনের ক্ষতি করছে না, গোটা ইউরোপকে বিপজ্জনক পরিস্থিতিতে ফেলছে। এর পরে তারা কী করে ইউরোপের সঙ্গে ভাল সম্পর্ক চায়!’

প্যাটেল আরও বলেন, ‘রাজনৈতিক সমাধান তো একটাই। রুশ ফেডারেশন ইউক্রেন থেকে বেরিয়ে যাক। ইউক্রেনের জমি ছেড়ে দিক, ক্রিমিয়া ছেড়ে দিক, তাতেই শান্তিপূর্ণ সমাধান হয়ে যাবে। কিন্তু পুতিন স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি সেই পথে হাঁটতে একেবারেই আগ্রহী নন।’ সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া বাংলা

এনবিএস/ওডে/সি

news